You are here: Home / শখের বাগান / প্রাণীর মত দেখতে বিস্ময়কর কিছু অর্কিড ফুল

প্রাণীর মত দেখতে বিস্ময়কর কিছু অর্কিড ফুল

পৃথিবীতে বিস্ময়ের কত কিছুই না আছে। তার কত টুকুই আমরা দেখেছি বা জেনেছি। অর্কিড প্রকৃতির বিস্ময়। পৃথিবীতে এত এত প্রজাতির অর্কিড ফুল আছে যে, কারো একার পক্ষে এক জীবনে সব গুলো অর্কিডের সম্পর্কে ধারণা নেয়াও সম্ভব নয় প্রায় অসম্ভব ই বলা চলে । এখন পর্যন্ত প্রায় কত প্রজাতির অর্কিডের সন্ধান পাওয়া গেছে তার কোন সুনির্দিষ্ট কোন তালিকা নেই বা করা সম্ভব হয়নি, নতুন নতুন প্রজাতির সন্ধান এখনো পাওয়া যাচ্ছে। তবে ধারণা করা হয় প্রায় ৮০০ গণ আর ২১,৯৫০ থেকে ২৬,০৪৯ প্রজাতির অর্কিডের সন্ধান পাওয়া গেছে। এর মধ্যে কিছু পাওয়া গেছে যেগুলো দেখতে অবিকল বিভিন্ন প্রানীর মত অর্থাৎ ফুলগুলো দেখলে মনে হবে প্রাণীর চেহারা। মজার মজার প্রাণীর মতো দেখতে এই সব অর্কিড ফুল এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার জন্যেই আজকের এই আয়োজন।

১। বি-অর্কিড (Bee orchid) দেখতে মোমাছির মতো:

অর্কিড

অর্কিড

অর্কিড

এই অবিশ্বাস্য অর্কিডটির নাম ছবি দেখেই ধারণা করা যায়, এর নাম “ বি-অর্কিড” এবং বৈজ্ঞানিক নাম অফ্রিস এপিফেরা। সাধারণভাবে দেখলে মনে হবে একটি মেয়ে মৌমাছি তার পুরুষ মৌমাছিকে পরাগায়নে আকৃষ্ট করার জন্য ফুলের উপর বসে আছে। প্রকৃতই পরাগায়নে সহায়তার জন্য এর এই অদ্ভুদ বেশ। পুরুষ মৌমাছি অনেকটা দিগভ্রান্ত হয়েই ফুলের উপর গিয়ে বসে, ফলে রেনু কণা পাখায় লাগে এবং পরাগায়নে সহায়তা করে। বিস্ময়কর এই অর্কিডটি দেখতে হলে আপনাকে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড কিংবা ওয়েলস এ যেতে হতে পারে।

২। বার্ডস-হেড-অর্কিড (Bird’s Head Orchid) দেখতে পাখির মাথার মতোঃ

অর্কিড ফুল

অর্কিড ফুল

এই অর্কিডটিকে অনেকে পিঙ্ক মথ অর্কিডও বলে। একটি মিষ্টি পাখি যেন ফুলের উপর বসে তার মধু পাহারা দিচ্ছে, প্রথম দর্শনে সবার এমন ধারণা হতেই বাধ্য। স্রষ্টার কি অপার মহিমা, ফুলটিকে তিনি এমন ভাবেই সৃষ্টি করেছেন ভালভাবে লক্ষ্য করলে মনে হবে যেন, ছোট্ট মিষ্টি একটি পাখি ফুলের মধ্যে পড়ে আটকে আছে আর সেখান থেকে উঠে আসার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছে।

৩।  হোয়াইট-এগ্রেট-অর্কিড (White Egret Orchid) দেখতে সাদা বকের মতোঃ

অর্কিড ফুল

অর্কিড ফুল

রাজসিক ভঙ্গিমার এই ফুলটিকে হোয়াইট-ইগ্রেট-অর্কিড বলে কারণ দেখতে অনেকটা সুভ্র সাদা বকের মত। বৈজ্ঞানিক নাম হাবেনারিয়া রেডিয়াটা। ফুলের পাপড়িগুলো এমন ভাবে ছড়ানো যেন একটি সাদা বক তার পাখা মেলে মাথাটিকে সামনের দিকে ঝুকে আছে, আর এক্ষুনি লাফ দিয়ে উড়ে যাবে। ছবিটির দিকে তাকান সেইরকম কি লাগছে না ??

৪। ডাভ-অর্কিড (Dove Orchid) দেখতে পাখির মতোঃ

অর্কিড ফুল

অর্কিড ফুল

পিঙ্ক মথ অর্কিডের মত এই অর্কিডেও এক অদ্ভুদ কারুকাজ আছে। যা অবিকল পুরো একটি পাখির অনুরুপ । তাই এর নাম দেয়া হয়েছে ডাভ-অর্কিড। এর আদুরে নাম হোলি-ঘোস্ট-অর্কিড আর বৈজ্ঞানিক নাম পেরিসটেরিয়া ইলাটা।

৫। বানরমুখো-অর্কিড (Black Dragon Monkey Orchid) দেখতে অবিকল বানরের মুখের মতোঃ

অর্কিড

ব্লাক ড্রাগন বানরমুখো অর্কিডের অন্য নাম ড্রাকুলা ভ্যাম্পায়ার নেগ্রা   (Dracula vampira negra)। আর বৈজ্ঞানিক নাম “ড্রাকুলা সিমিয়া”। লুইয়ার নামে একজন উদ্ভিদ বিজ্ঞানী ১৯৭৮ সালে প্রথম এই অর্কিডের অস্তিত্ব আবিষ্কার করেন । এই অর্কিডের প্রায় ১২০ টি প্রজাতি আছে। কোন বিশেষ ঋতু নয় এটি সারা বছরই জন্মাতে পারে । অর্কিডটি নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলে ভালো হয়, বিশেষত ২৭ ডিগ্রি সে তাপমাত্রা নিচে ফুলটির জন্য উপযোগী । ফোটা ফুলের ঘ্রান অনেকটা পাকা কমলার ঘ্রানের মত। বাগানে চাষ করাটা বেশ কঠিন। বাগানে এই রকমের বানরের উপস্থিতি খুব একটা মন্দ নয়, অন্ততপক্ষে বানরের বাঁদরামি থেকেতো বাচা যাবে।

৬।  ফ্ল্যাইং-ডাক-অর্কিড (Flying Duck Orchid) দেখতে উড়ন্ত হাঁসের মতোঃ

অর্কিড

অর্কিড

আমার বিস্ময়কর অর্কিডের শেষ তালিকায় আছে ফ্ল্যাইং-ডাক-অর্কিড ( বৈজ্ঞানিক নাম সেলিয়েনা মেজর)। ক্ষুদ্রাকৃতির এই অর্কিডটি আকারে মাত্র ৫০ সেমি লম্বা। প্রসারিত লম্বা এই কান্ডটিতে ২ থেকে ৪ টি ফুল ফোটে। ফুলের বর্ণ অনেকটা আমাদের দেশের লাল মুলার মত। কোন কোন ফুলে অবশ্য কালো কালো দাগ দেখা যায় তবে, এটা খুবই ব্যাতিক্রম । সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারি এই পাঁচ মাস ফুল ফোঁটার মৌসুম। এই ফুল পুরোপুরিই বন্য, তাই বাগানে লাগানোর চেষ্টা পুরপুরিই বৃথা। তবে কেউ বন্য অবস্থায় দেখতে চাইলে যেতে হবে কুইন্সল্যান্ড, দক্ষিন অস্ট্রেলিয়া কিংবা তাসমানিয়ায়।

লিখতে লিখতে আমারো লোভ লেগে গেলো, এই সব অর্কিড আমাদের দেশে কোথাও পাওয়া যায় কিনা আমার জানা নেই তবে জানার চেষ্টা করছি। কোন তথ্য জোগাড় করতে পারলে অবশ্যই আপনাদের সাথে শেয়ার করবো। আর আপনাদের কাছে যদি কোন সন্ধান থাকে তাহলে আমাদের জানাতে ভুলবেন না কিন্তু।

অর্কিড সম্পর্কে আরো জানতে দেখুন–>

অপার সম্ভাবনাময় শিল্প অর্কিড 

Leave a Reply

Scroll To Top