You are here: Home / প্রযুক্তি প্রেমী / পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

পাওয়ার পয়েন্ট ২০১৩ তে ইন্টারফেস এর কিছুটা পরিবর্তন আসলেও তা অনেকটা ২০১০ এর মতোই। আমরা জানি পাওয়ার পয়েন্ট ২০১৩ তে শুরুতেই থিম সিলেক্ট করার একটি ইন্টারফেস দেখতে পাই। এরপর থিম সিলেক্ট করে কাজ শুরু করতে পারি। এছাড়াও আরো কিছু অপশন যেমন সর্বশেষ যে কয়টি প্রেজেন্টেশন নিয়ে কাজ করা হয়েছে তা দেখায়। পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস বলতে যে সব অপশন আমরা কাজ করার সময় সরাসরি দেখতে পাই বা আমাদের কাজে লাগে তা বুঝানো হয়েছে।

পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

উপরের ছবিতে যে ইন্টারফেসটি দেখানো হয়েছে সেখান থেকে থিম সিলেক্ট করতে হয়। থিম কালার অপশন যেমন আছে তেমনি ক্যাটাগরি অনুযায়ী প্রচুর থিম রয়েছে। আপনি আপনার কাজের জন্য উপযোগী থিম এবং কালার নিয়ে শুরু করে দিতে পারেন। থিম সিলেক্ট করার পর সরাসরি পাওয়ার পয়েন্ট স্লাইড তৈরি থেকে শুরু করে সকল কাজ যেখান থেকে করতে হয় তা আসবে, মুলত সব ইন্টারফেস গুলো ওখানেই দেখতে পাবেন। আসুন আমরা কিছু ইন্টারফেসের সাথে পরিচিত হই। নাম্বার অনুযায়ী বিস্তারিত দেয়া হলো-

পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

১। ফাইল মেনু ও ব্যাকস্টেজ ভিউঃ উপরের ছবির ১ নং ইন্টারফেসটি হচ্ছে ফাইল মেনু। ফাইল মেনুতে ক্লিক করার পর একটা ব্যাকস্টেজ পেজ আসে যেখানে নতুন ফাইল নেওয়া, সেভ করা ও এক্সপোর্ট করার অপশন আসে। এছাড়াও প্রিন্ট ও শেয়ার করার অপশন আছে এখানে। বিস্তারিত জানুন ফাইল মেন্যু ও বেকস্টেজ ভিউ সম্পর্কে।

পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

২। কুইক এক্সেস টুলবারঃ পাওয়ার পয়েন্টে ডিফল্টভাবে এই টুলবারটার অবস্থান রিবন এর উপরে অর্থাৎ সবার উপরে, তবে আপনি চাইলে এটাকে কাস্টমাইজ করে নিতে পারেন। এখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় সব কমান্ড যেগুলো সব সময় আপনার কাজে লাগে তা যোগ করে নিতে পারেন, এতে করে আপনার কাজ আরো সহজ হবে। কুইক এক্সেস টুলবারে সব কমান্ডগুলো আইকন আকারে দেখা যাবে, প্রয়োজনে টুলবারটি রিবন এর নিচেও আনা যাবে।

৩। রিবনঃ উপরের মার্কিং করা ছবিতে ৩ নং অপশনটি হলো রিবন। রিবনে বিভিন্ন অপশন আছে প্রত্যেকটি অপশন এক একটি গ্রুপের মতো যার ভিতরে আবার বিভিন্ন অপশন আছে যেমন স্লাইড শো তে ক্লিক করলে স্লাইড শো করার জন্যে যত অপশন দরকার তার সবগুলোই দেখাবে।

৪। স্লাইড প্যানঃ স্লাইড প্যানে আপনি যে কয়টি স্লাইড নিয়ে কাজ করছেন সেগুলো দেখাবে, যে কোন সময় প্রয়োজন অনুযায়ী স্লাইডে ক্লিক করে সরাসরি সেই স্লাইডে চলে যাওয়া যায়। কোন কারনে যদি স্লাইড প্যান দেখা না যায় তাহলে রিবনে গিয়ে view বাটন এ ক্লিক করে normal অপশনটি বেছে নিলেই স্লাইড প্যান চলে আসবে।

৫। স্লাইড বর্ডারঃ ৫ নং অপশনটি হলো স্লাইড বর্ডার অর্থাৎ স্লাইডের কতটুকু যায়গা জুড়ে আপনি কাজ করতে পারবেন তা দেখায়।

৬। টাস্ক প্যানঃ টাস্ক প্যানে অনেকগুলো অপশন আছে আর এটি তখনি দেখা যাবে যখন আপনি রিবন থেকে নির্দিষ্ট কোন ট্যাব খুলবেন। উদাহরণস্বরূপ আপনি যদি format background এ ক্লিক করেন তাহলে ডান পাশে টাস্ক প্যানে বিভিন্ন অপশন সহ format background টাস্ক প্যান খুলে যাবে।

৭। স্ট্যাটাস বারঃ স্লাইড এর একদম নীচে অনুভূমিকভাবে এই বারটি আছে। এই মুহুর্তে আপনি কত নাম্বার স্লাইডে আছেন, কোন থিম নিয়ে কাজ করছেন এই অপশনগুলো আছে এতে, আছাড়াও এখানে view ও zoom অপশন আছে। view অপশন নিয়ে নিচে আরো বিস্তারিত আছে।

৮। নোটস প্যানঃ স্ট্যাটাস বারের ঠিক উপরেই নোটস প্যান দেখা যায়। নোটস প্যানে গুরত্বপুর্ন যে কোন নোট লিখে রাখতে পারেন, যা স্লাইড শো এর সময় দেখা যাবেনা অথচ notes page view কিংবা presenter view দুটোতেই দেখা যাবে।

৯। ভিউ বাটনঃ স্ট্যাটাস বারে সাধারনত তিন ধরনের view বাটন আছে এবং এটি কমানো বাড়ানো zoom অপশন সহ দেখা যায়।

  • Normal: আপনি যদি অন্য কোন ভিউতে থাকে যেমন slide sorter view তে আছেন তখন স্ট্যাটাস বারের normal view তে ক্লিক করে নিলেই চলে আসবে। আর যদি shift চেপে normal view তে ক্লিক করেন তাহলে slide master view চলে আসবে।
  • Slide Sorter: অন্য যে কোন view থেকে slide sorter view তে আসতে slide sorter view ক্লিক করুন। slide sorter view তে আপনি zoom করে ছোট বড় করে দেখতে পারবেন। আর shift চেপে slide sorter view তে ক্লিক করলে handout master view তে নিয়ে যাবে।
  • Reading View: অন্য যে কোন view থেকে reading view তে আসতে reading view বাটনে ক্লিক করুন।
  • Slide Show View: সরাসরি যেই স্লাইড এ আপনি এখন আছেন তা থেকে স্লাইড শো প্রেজেন্টেশন দেখতে চাইলে slide show view বাটনে ক্লিক করুন। আর shift চেপে ক্লিক করলে set up show ডায়ালগ বক্স চলে আসবে।

১০। মিনি টুলবারঃ উপরের মার্কিং করা ছবিতে এই টুলবারটিকে দেখানো সম্ভব হয়নি তাই নিচে দেখানো হয়েছে। এই টুলবারটি তখনি আসবে যখন আপনি যে বিষয় নিয়ে কাজ করবেন যেমন ধরুন আপনি টেক্সট নিয়ে কাজ করছেন তখন মাউস পয়েন্টারের ঠিক পাশেই এটি দেখাবে। টেক্সট সিলেক্ট করলে কিংবা টেক্সট এর উপর রাইট বাটন ক্লিক করলে এই টুলবারটি দেখা যায়।

পাওয়ার পয়েন্ট এর বিভিন্ন ইন্টারফেস

Leave a Reply

Scroll To Top